লাইফ-স্টাইল

১০টি সহজ উপায় যা আপনার মস্তিষ্কের ক্ষমতা বৃদ্ধি করবে

মস্তিষ্কের ক্ষমতা

আপনার মস্তিষ্ক সম্পর্কে ভেবেছেন কখনো? কখনো কি বিস্মিত হয়েছেন মস্তিষ্কের ক্ষমতা এবং এর দারুন নৈপুণ্যের কথা ভেবে? আশা করছি আপনাদের বেশির ভাগের উত্তর হবে “না” ।

আশ্চর্যের বিষয় হচ্ছে আমরা আমাদের মস্তিষ্কের মাত্র ১০ শতাংশের মত ব্যবহার করে থাকি। অনেক দিন যাবত বিশেষজ্ঞরা বিশ্বাস করেন আমরা আমাদের জন্মের সময়কার মস্তিষ্কেই আটকে আছি।

কিন্তু সাম্প্রতিক গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে যে আমরা আমাদের মস্তিষ্কে পরিবর্তন আনতে পারি। এর অর্থ হল মস্তিষ্কের ক্ষমতা বাড়াতে আমরা আমাদের মস্তিষ্কে পরিবর্তন আনতে পারি কিছু ছোট অনুশীলনের মাধ্যমে।

 

যেমন, মস্তিষ্ক এক ধরনের পেশী, এর নিয়মিত ব্যায়াম প্রয়োজন।

 

ভাল খবর যে, মস্তিষ্কের ক্ষমতা বাড়াতে আপনাকে কোটিপতি হতে হবে না। আপনার মেধাশক্তি বাড়াতে যা করতে হবে কিছু সময় মস্তিষ্কের অনুশীলনে ব্যায় করতে হবে।

আমাদের তাহলে কি করতে হবে?

এই লেখায় পাবেন আপনার মস্তিষ্কের ক্ষমতা এবং মেধা শক্তি বাড়ানোর সহজ ১০টি উপায়।

#১ নতুন কিছু করুন

যখন আপনি নতুন কিছু করেন বা নতুন অভিজ্ঞতা নেন, এটা আসলে আপনার মস্তিষ্ককে ‘উদ্দীপিত’ করে! একই কাজের মধ্যে সীমাবদ্ধ না থেকে নতুন নতুন কিছু করুন, এতে আপনার মস্তিষ্কের গঠন কাঠামোর পরিবর্তন হবে। এতে নতুন স্নায়ু পথের তৈরি হবে, আপনার মেধাশক্তি বাড়াবে। হয়তো কাজে যাবার সময় নতুন পথে যেতে পারেন, নতুন নতুন রেসিপি ট্রাই করে দেখতে পারেন অথবা নতুন ধরনের ব্যায়াম শুরু করতে পারেন।

#২ নিয়মিত ব্যায়াম করুন

এটা প্রমাণিত যে নিয়মিত অনুশীলন মস্তিষ্কের কর্মক্ষমতা বাড়ায় এবং নিউরোজেনেসিসকে সমৃদ্ধ করে। এর মানে আপনি প্রত্যেকবার যখন অনুশীলন করেন আপনি মস্তিষ্কের নতুন কোষ তৈরি করছেন! নেমে পড়ুন হালকা ব্যায়ামে, আপনার মস্তিষ্ক এর প্রতিদান দেবে নিশ্চিত।

#৩ আপনার স্মৃতিকে প্রশিক্ষণ দিন

আমি বহুবার লোকমুখে আফসোস করতে শুনেছি এই বলে যে যদি “আরও ভাল স্মরণশক্তি থাকতো!” আপনি যদি ফোন নম্বর সহ অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ নম্বর (পাসপোর্ট, ক্রেডিট কার্ড, ইনস্যুরেন্স, ড্রাইভিং লাইসেন্স ইত্যাদি) মনে রাখার অভ্যেস তৈরি করতে পারেন, আপনার স্মরণশক্তির উন্নতি নিজেই অনুভব করতে পারবেন।

#৪ কৌতুহলী হোন

প্রতিদিন প্রত্যেকটি কাজে প্রশ্ন করার বা জানার অভ্যাস করুন। কৌতুহলী হয়ে সকল বিষয়ে প্রশ্ন করলে, আপনি আপনার মস্তিষ্কে বাধ্য করছেন নতুন আইডিয়া বা উদ্ভাবন তৈরি করতে।

#৫ ইতিবাচক চিন্তা করুন

মানসিক চাপ ও উদ্বেগ আপনার মস্তিষ্কের নিউরনকে হত্যা করে এবং নতুন নিউরণ তৈরি হতে বাঁধা দেয়। গবেষণায় দেখা যায় ইতিবাচক চিন্তাভাবনা, বিশেষ করে ভবিষ্যতের ইতিবাচক চিন্তাভাবনা দ্রুত মস্তিষ্কের কোষ তৈরি করে এবং নাটকীয়ভাবে মানসিক চাপ ও উদ্বেগ কমায়।

#৬ স্বাস্থ্যকর খাবার খান

আমাদের খাদ্যাভ্যাস আমাদের মস্তিষ্কের ফাংশনে গুরুত্বপূর্ণ প্রভাব ফেলে। আমাদের গ্রহণ করা সকল পুষ্টি উপাদান ও অক্সিজেনের ২০ শতাংশ আমাদের মস্তিষ্ক খরচ করে ­–

তাই আপনার মস্তিষ্ককে ভাল কিছু দিন! (যেমন সতেজ ফল-ফলাদি, শাকসব্জী ও অনেক বেশী OMEGA 3 তেল পাওয়া যায় এমন মাছ)

#৭ বই পড়ুন

বই পড়া টেনশন ও মানসিক চাপ কমায়। গবেষণায় দেখা গেছে আপনার কল্পনাশক্তি আপনার মস্তিষ্কের প্রশিক্ষণের একটি উত্তম উপায়; কারণ এভাবে আপনি যা কল্পনা করছেন মাস্তিষ্কে তার একটা ছবি তৈরি করতে বাধ্য করছেন। বই পড়া আপনার কল্পনাশক্তিকে ট্রিগ্রার করার একটি ভাল উপায়।

#৮ যথেষ্ট পরিমাণে ঘুমান

ঘুম মস্তিষ্কের জন্য ছোট খাটো ডিটক্স। ঘুমের সময় আপনার শরীর কোষ তৈরি করে এবং সাড়া দিনে তৈরি হওয়া শরীরের সকল বিষ দূর করে। যথেষ্ট পরিমাণে ঘুম শরীরকে এ কাজে যথেষ্ট পরিমাণে সময় দেয়।

#৯ জিপিএস ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন

ম্যাপ দেখে চলার দিন শেষ হয়ে গেছে ! স্যাটেলাইট নেভিগেশন এখন জীবনকে সহজ করেছে; এর সাথে সাথে আমাদের মস্তিষ্ককে করেছে অলস এবং অকার্যকর! আগেকার দিনে ফিরে যান এবং ম্যাপ দেখে চলার অভ্যাস করুন। এতে আপনার মস্তিষ্ক স্থান-সংক্রান্ত কাজে ব্যস্ত থাকবে। মস্তিষ্কের ধারণ ক্ষমতা বৃদ্ধি করবে।

#১০ ক্যালকুলেটর ব্যবহার বাদ দিন

ছোটবেলার কথা চিন্তা করুন যখন আমাদের মস্তিষ্ক ব্যবহার করে নামতা পড়ে সহজ হিসেব নিকাশ করতে শেখানো হত। এখনকার দিনে আমরা সহজ অঙ্ক কোষতেও স্মার্ট ফোন বা ল্যাপটপের উপর নির্ভর করি। চেষ্টা করুন সহজ হিসাবের কাজে ক্যালকুলেটর থেকে শুরু করে যেকোন ডিভাইস ব্যবহারে বিরত থেকতে এবং এ কাজে আপনার মস্তিষ্ক ব্যবহার করুন।

Click to comment

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

To Top