সচেতনতা

পাঁচটি TED ভিডিও – প্রতিদিন কিভাবে করব

কিভাবে করবো

টি.ই.ডি. – টেড (TED) হল একটি সংগঠন যারা কার্যকরী, প্রয়োজনীয়, টেকসই ধারণা প্রচার করে থাকে। তারা বলে, ideas worth spreading – শাব্দিক অর্থ “প্রচার যোগ্য ধারণা”। মূলত, বিভিন্ন ক্ষেত্রে অভিজ্ঞ বা প্রতিষ্ঠিত ব্যক্তির সংক্ষিপ্ত (১৮ মিনিট বা তার কম দৈর্ঘ্যের) বক্তৃতা বা উপস্থাপনার আয়োজন করে এবং ভিডিও রেকর্ড করে তা ইন্টারনেটেও শেয়ার করে, ছড়িয়ে দেয়। ১৯৮৪ সালে প্রযুক্তি, বিনোদন এবং ডিজাইন এই তিন বিষয়ভিত্তিক উপস্থাপনা নিয়ে টেড এর যাত্রা আরম্ভ হয়। ওই তিন বিষয়ের ইংরেজী প্রতিশব্দের প্রথম অক্ষরগুলো নিয়ে সংগঠনটির নামকরণ হয়েছিলো। TED – Technology, Educaiton, Design. তবে বর্তমানে জ্ঞান-বিজ্ঞানের প্রায় সব বিষয়ে ১০০ টিরও বেশি ভাষায় উপস্থাপনা আয়োজন করা হয় আর তা ভিডিও আকারে ছড়িয়ে দেয়া হয়।

টেড এর ভিডিও আর্কাইভ থেকে অনেক বড়। আপনার কর্ম চাঞ্চল্যে ভরপুর প্রাত্যহিক জীবনকে সহজ-সরল করতে কার্যকরী পাঁচটি “কিভাবে-করব” সহায়িকা ভিডিও এখানে দেয়া হয়েছে। প্রতিটি ভিডিও টেড এর ওয়েবসাইটে হোস্ট করা, ক্লিক করলে তাদের সার্ভার থেকে চলবে। টেড এর ওয়েবসাইটের ভিডিও, ইউটিউবের মত দ্রুত চলে না। তাই, কিছুটা ধৈর্যধারণ করতেই হবে। তবে, নিশ্চিত থাকুন ভিডিও দেখে আপনি লাভবান হবে।

কিভাবে-জুতার ফিতা বাঁধতে হবে।

টেরি মুর, তার ভাষ্যমতে আজীবন ভুল পদ্ধতিতে জুতোর ফিতে বাঁধতেন। একদিন তিনি সঠিক উপায়টি শিখেছিলেন। অনেক ছোট কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ এই বিষয়টি নিয়ে তিনি কথা বলেছেন টেড প্লাটফরমে। দেখুন তার সেই ভিডিও।

কিভাবে-কঠিন সিদ্ধান্ত নিতে হয়।

এখানে একটি বক্তৃতা রয়েছে, যা আক্ষরিক অর্থেই আপনার জীবন পরিবর্তন করতে সক্ষম। আমি কিরকম কর্মজীবন চাই? আমি সম্পর্কচ্ছেদ করবো – নাকি বিয়েটা করেই ফেলবো ?! আমি কোথায় থাকব? এই রকম বড় সিদ্ধান্ত নেয়াটা সবার জন্যেই কঠিন এক কাজ। দার্শনিক রথ চ্যাং বলেন, “এর কারণ হল আমরা এসব বিষয়ে ভুল পথে চিন্তা করি”। সঠিক উপায়ে নিজেদের গড়ে নিতে তিনি এক শক্তিশালী নতুন কাঠামো প্রস্তাব করেছেন, এই ভিডিওতে।

কিভাবে-পেপার টাওয়েল ব্যবহার করতে হয়

ঘরে না হলেও, রেস্তোরাঁয় বা বিভিন্ন অনুষ্ঠানে আমরা অনেকেই হাত শুকানোর জন্য কাগজের তোয়ালে ব্যবহার করি। তবে সম্ভাবনা আছে যে, অনেকেই সেটি ভুল উপায়ে করেন। ছোট এই শিক্ষণীয় কিন্তু মজার বক্তৃতায়, জো স্মিথ কাগজের তোয়ালে ব্যবহারের নিখুঁত কৌশল দেখিয়েছেন।

কিভাবে-অবসর সময়ের ওপরে নিয়ন্ত্রণ করা যায়

আমরা প্রতি সপ্তাহে ১৬৮ ঘন্টা সময় পাই। কিন্তু এই একশত আটষট্টি ঘন্টায় কে আছেন যিনি নিজের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কাজটির জন্য সময় খুঁজে পান? “সময় ব্যবস্থাপনা বিশেষজ্ঞ” লরা ভান্ডারকাম অধ্যয়ন করেছেন যে, কি উপায়ে ব্যস্ত মানুষ তাদের জীবন যাপন করে, এবং তিনি আবিষ্কার করেছেন আমাদের মধ্যে অনেকেই প্রতি সপ্তাহে কর্তব্যের তালিকাটি খুব বড় মনে করেন, এবং সেই তুলনায় নিজেদের সময়কে অপ্রতুল মনে করেন। আমাদের গুরুত্বপূর্ণ কাজের জন্যে কিভাবে সময় বের করবো তার কয়েকটি বাস্তব কৌশল প্রস্তাব করেছেন, যাতে করে  “আমরা যতটুকু সময় পেয়েছি, তার মধ্যেই আমাদের মনের কত করে সব কাজ সমাধা করতে পারি।”

 

কিভাবে-সতেজ বাতাস উৎপাদন করবেন

গবেষক কামাল মিটেল ভিডিওতে দেখিয়েছেন, কিভাবে একটি বাড়িতে বা অফিসে নির্দিষ্ট স্থানে মাত্র তিনটি সাধারণ হাউজ প্লান্ট লাগানো যায়, আর তার ফলে ঘরের অভ্যন্তরে কি করে নির্মল সতেজ বাতাস তৈরী হতে পারে।

Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

To Top