খেলাধুলা

ফুটবল বিশ্বকাপ ইতিহাসে না ভোলার মত কিছু বিতর্কিত মুহূর্ত

ফুটবল বিশ্বকাপ ইতিহাসে না ভোলার মত কিছু বিতর্কিত মুহূর্ত

ফুটবল বিশ্বকাপের ২১তম আসর বসতে যাচ্ছে রাশিয়াতে। এর আগের ২০ আসরই ছিল জমজমাট, ঘটনাবহুল। ফুটবল বিশ্বকাপে বিতর্কিত ঘটনার সংখ্যাও কম নয়। এই লেখায় থাকছে ফুটবল বিশ্বকাপ ইতিহাসে না ভোলার মত কিছু বিতর্কিত মুহূর্ত এর কথা।

মারকো মাতারাজ্জিকে জিদেনিন জিদানের মাথা ধাক্কা

ফুটবল বিশ্বকাপ ইতিহাসে না ভোলার মত কিছু বিতর্কিত মুহূর্ত

Photo:90min.in

২০০৬ সালের ফুটবল বিশ্বকাপ ফাইনালে ইতালির মারকো মাতারাজ্জিকে বুকে মাথা দিয়ে ধাক্কা দেন ফ্রান্সের অধিনায়ক জিদেনিন জিদান এবং রেফারি হোরাসিও এলিজোন্দো চতুর্থবারের মত সতর্ক করার পর তাকে বহিষ্কার করেন। কয়েক মাস পর, দাবি করা হয় মাথা দিয়ে আঘাত করার আগে মাতারাজ্জি জিদানের বোনকে অপমান করেছিলেন।

বেটিস্টনের উপর সুমেখারের ভয়ঙ্কর ট্যাকেল

ফুটবল বিশ্বকাপ ইতিহাসে না ভোলার মত কিছু বিতর্কিত মুহূর্ত

Photo: thenational.ae

১৯৮২ সালের বিশ্বকাপে পশ্চিম জার্মানি বনাব ফ্রান্স সেমি-ফাইনাল ম্যাচে পশ্চিম জার্মানির গোল কিপার বিশ্বকাপ ইতিহাসে সবচেয়ে বিপদজনক ট্যাকেলটি করেন। ফরাসি স্ট্রাইকার প্যাট্রিক বেটিস্টন তখন বল নিয়ে ডি বক্সের মধ্যে গোল কিপারকে পরাস্ত করতে পারলেই গোল হবে, এমন এক পরিস্থিতিতে গোল কিপার সুমেখার গোল বাঁচাতে বলের দিক পরিবর্তনে অনেকটা ফ্লাইং কিকের মত হাটু তুলে দিলেন এক লাফ। বল ফেরাতে তিনি পুরোপুরি ব্যর্থ হলেও তার পুরো শক্তি এবং  গতিতে নিয়ন্ত্রণহীনভাবে গিয়ে পরলেন বেটিস্টনের উপর। সুমেখারের কোন শাস্তি না হলেও দুটো ভাঙা দাঁত, একটি ঘাড়ের হাড়, তিনটি ভাঙা পাঁজরের হাড় নিয়ে মাঠের বাইরে যেতে হয়েছিল। পশ্চিম জার্মানি ম্যাচ জিতে ফাইনালে উঠলেও, ইতালির কাছে পরাজিত হয়েছিল।

দিয়াগো ম্যারাডোনার “ঈশ্বরের হাত” গোল

ফুটবল বিশ্বকাপ ইতিহাসে না ভোলার মত কিছু বিতর্কিত মুহূর্ত

ইশ্বরের হাত গোল হওয়ার ঠিক আগ মুহূর্ত। Photo:rarehistoricalphotos.com

মেক্সিকো সিটিতে ১৯৮৬ সালের বিশ্বকাপের কোয়াটার ফাইনালে ইংল্যান্ডের গোলকিপার পিটার শিল্টনের বিরুদ্ধে লাফ দিয়ে বল নিয়ন্ত্রণে নেওয়ার সময় আর্জেন্টিনার দিয়েগো ম্যারাডোনা হাত দিয়ে গোল করেন। ম্যাচ কর্মকর্তাগণ এই ঘটনা ধরতে ব্যর্থ হন এবং গোল হিসেবে ঘোষণা দেওয়া হয়। ম্যারাডোনা পরবর্তীতে সাংবাদিকদের বলেন “ঈশ্বরের হাত” তাকে সহযোগিতা করেছিল। তবে ঘটনার ২২ বছর পর ম্যারাডোনা এই ঘটনার জন্য ক্ষমতা চেয়েছিলেন

আন্দ্রেস এস্কোবারের হত্যাকাণ্ড

ফুটবল বিশ্বকাপ ইতিহাসে না ভোলার মত কিছু বিতর্কিত মুহূর্ত

Photo:cbc.ca

১৯৯৪ সালের বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্যায়ের মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বনাম কলম্বিয়ার ম্যাচে কলম্বিয়ার খেলোয়াড় আন্দ্রেস এস্কোবার নিজেদের জালেই গোল করে বসে। ম্যাচে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ২-১ গোলে জয়ী হয় এবং কলম্বিয়া গ্রুপের শেষ দল হিসেবে বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নেয়। এতে কলম্বিয়ার সমর্থকেরা আন্দ্রেস এস্কোবারের প্রতি ক্ষিপ্ত হয়ে যে, দেশে ফিরে গেলে এক ফুটবল সমর্থক তার ভুল গোলের প্রতিশোধ নিতে তাকে গুলি করে হত্যা করে।

রুডি ভোলারকে ফ্রাঙ্ক রিজকার্ডের থুথু নিক্ষেপ

ফুটবল বিশ্বকাপ ইতিহাসে না ভোলার মত কিছু বিতর্কিত মুহূর্ত

Photo:theguardian.com

১৯৯০ সালের বিশ্বকাপে শেষ ১৬ রাউন্ডের এক ম্যাচে নেদারল্যান্ডের মিডফিল্ডার ফ্রাঙ্ক রিজকারড পশ্চিম জার্মানির রুডি ভোলারের দিকে থুথু নিক্ষেপ করলে ২২ মিনিটের বিবাদের পর দুইজনকেই ম্যাচ থেকে বহিষ্কার করা হয়।

লুইস সুয়ারেজের হ্যান্ড বল

ফুটবল বিশ্বকাপ ইতিহাসে না ভোলার মত কিছু বিতর্কিত মুহূর্ত

Photo:AFP/Getty Images

২০১০ সালের ফুটবল বিশ্বকাপ কোয়াটার ফাইনালে ঘানার বিরুদ্ধে উরুগুয়ের লুইস সুয়ারেজ এক্সট্রা টাইমের শেষ মিনিটে গোল লাইনের উপর থেকে হাত দিয়ে ইচ্ছাকৃতভাবে ঘানার গোল আটকে দেয়। সুয়ারেজকে মাঠ থেকে বহিষ্কার করা হয় এবং ঘানার পক্ষে প্যানাল্টি দেওয়া হয়, কিন্তু আসামোয়াহ গ্যানের শটটি ক্রসবারে লাগে, গোল করতে ব্যর্থ হন এবং ম্যাচ প্যানাল্টি শট-আউট পর্যন্ত গড়ায়, ম্যাচে উরুগুয়ে ৪-২ গোলে জয়ী হয়েছিল।

নুরেম্বার্গের যুদ্ধ

ফুটবল বিশ্বকাপ ইতিহাসে না ভোলার মত কিছু বিতর্কিত মুহূর্ত

Photo:thesportsman.com

যেকোন ফুটবল বিশ্বকাপে এক ম্যাচে সর্বোচ্চ চার জন খেলোয়াড় বহিষ্কার করা হয় এবং ১৬ টি হলুদ কার্ড দেখানো হয়, ২০০৬ সালের বিশ্বকাপে জার্মানিতে এই ঝোড়ো ম্যাচে নেদারল্যান্ডের বিরুদ্ধে পর্তুগাল জয়ী হয়। ম্যাচটিতে খেলোয়াড়দের আচরণ এমনই রগচটা এবং বাজে মেজাজের ছিল যে ম্যাচটিকে পরবর্তীতে “নুরেম্বার্গের যুদ্ধ” নাম দেওয়া হয়েছিল।

নাইজেল ডি জং এর “কারাতে কিক”

ফুটবল বিশ্বকাপ ইতিহাসে না ভোলার মত কিছু বিতর্কিত মুহূর্ত

Photo:dailymail.co.uk

২০১০ সালের বিশ্বকাপের ফাইনাল ম্যাচে নেদারল্যান্ডের খেলোয়াড় নাইজেল ডি জং কে রেফারি হাওয়ার্ড ওয়েব্ব হলুদ কার্ড দেখিয়ে সতর্ক করেছিলেন, কারণ তিনি স্পেনের খেলোয়াড় জাবি আলনসোর বুকে ভয়ঙ্কর কিক দিয়েছিলেন। ঘটনাটি দেখতে এমনই বাজে ছিল যে ধারাভাষ্যকার গাই মোওব্রে একে “কারাতে কিক” বলে অভিহিত করেছিল।

রিভালদোর ইনজুরি

ফুটবল বিশ্বকাপ ইতিহাসে না ভোলার মত কিছু বিতর্কিত মুহূর্ত

Photo:90min.in

২০০২ বিশ্বকাপে, তুর্কি ডিফেন্ডার হাকান উনসাল বল কিক করলে বল ব্রাজিলের রিভালদোর পায়ে আঘাত করে, কিন্তু তখন রিভালদো আশ্চর্যজনকভাবে মাথায় আঘাত পাওয়ার ভান করেছিলেন। উনসালকে মাঠ থেকে বহিষ্কার করা হলেও, টিভি ক্যামেরা রিভালদোর সেই অভিনয় ধারণ করলে তা সাড়া বিশ্বের দর্শক দেখতে পেয়েছিল।

আশা করি পোস্টটি আপনাদের ভাল লেগেছে। অবশ্যই সকলের সাথে শেয়ার করবে। আর আপনাদের মতে এমন আরও স্মরণীয় মুহূর্তের কথা আমাদেরকে কমেন্টে জানান।

Click to comment

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

To Top