ইন্টারনেট

শিশুদের জন্যে নিরাপদ মেসেঞ্জার কিডস তৈরী করলো ফেসবুক

ফেসবুক তৈরী করলো মেসেঞ্জার কিডস অ্যাপ

ফেসবুক তৈরী করলো মেসেঞ্জার কিডস অ্যাপ, ১৩বছরের কম বয়সী শিশুদের জন্যে। ফেসবুকে শিশুদের প্রাইভেসি আর নিরাপত্তা নিশ্চিত করা আলাদা এই অ্যাপ তৈরী করা হয়েছে। অন্যান্য প্রতিযোগী অ্যাপ (যেমন – স্নাপচ্যাট) এর মাধ্যমে সৃষ্ট শিশু নিরাপত্তা ঝুঁকি ফেসবুক সম্পূর্ণরূপে দূর করতে সচেষ্ট হয়েছে বলে জানিয়েছে। আপাতত যুক্তরাষ্ট্রে শুধু মাত্র iOS (এপল ডিভাইস) এর জন্যে অ্যাপটি আইটিউনসে উন্মুক্ত করা হচ্ছে।

অভিভাবকদের যা ভাল লাগবে

সবচেয়ে উপকারী যে বৈশিষ্ট্য অভিভাবকদের নিশ্চিন্ত করবে তা হচ্ছে, বাবা-মা সন্তানের ফোনে বা ট্যাবলেটে অ্যাপটি নিজেই ডাউনলোড করে দিবেন। অতঃপর বাচ্চার প্রোফাইলও তিনি নিজেই তৈরী করে দিবেন। এবং সবচে’ গুরুত্বপূর্ণ, মেসেঞ্জার ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট দেওয়া-নেওয়া শুধু মাত্র বাবা-মা করতে পারবেন। এছাড়াও তারা জানতে পারবেন, সন্তান কার সাথে টেক্সট চ্যাটিং বা ভিডিও চ্যাটিং করছে

নিরাপত্তা

বিশেষ সুরক্ষা ফিল্টার নিশ্চিত করবে শিশুরা যেনো নগ্নতা, যৌনতা বা সহিংস কোন কনটেন্ট শেয়ার না করতে পারে। অভিভাবকদের রিপোর্টকৃত কনটেন্ট দ্রুততার সহিত যাচাই করতে ও সমস্যা সমাধানে থাকবে এই অ্যাপটির জন্যে ডেডিকেটেড এক সাপোর্ট টিম। শিশু-বান্ধব নতুন এক GIF শেয়ারিং ইঞ্জিন ডেভলপ করা হয়েছে, যা শিশুসুলভ অগমেন্টেড রিয়ালিটি মুখোশ এবং স্টিকার ব্যবহারের মাধ্যমে দাদা-দাদীর সাথে চ্যাটিং হবে মজাদার – এবং কখনোই এডাল্ট কোন মুখোশ এসে বড়দের অপ্রস্তুত করবে না।

 

ফেসবুক তৈরী করলো মেসেঞ্জার কিডস অ্যাপ

অফিসিয়াল স্ক্রিনশট থেকে নেওয়া ছবি মেসেঞ্জার কিডস

 

কিভাবে কাজ করবে

শিশুদের প্রাইভেসি নিশ্চিত করতে, তাদের মেসেঞ্জার প্রোফাইল ফেসবুক সার্চে খুঁজে পাওয়া যাবে না। অর্থ্যাৎ কোন শিশু যদি তার ক্লাসমেট এর সাথে চ্যাট করতে চায়, তাহলে তার অভিভাবককে তার বন্ধুর অভিভাবকের সাথে ফেসবুকে বন্ধুত্ব থাকতে হবে নতুন করতে হবে। আর তখনই শুধু বড়রা অন্যদের সন্তানদের দেখতে পারবেন আর নিজেদের সন্তানদের সাথে বন্ধুত্ব করিয়ে দিতে পারবেন। এই প্রক্রিয়াটিকে কেউ কেউ একটু জটিল বলে মনে করছেন। আশা করা যায় ফেসবুক খুব শীঘ্রই এই বিষয়ে আরো সহজ উপায় বের করবে নিরাপত্তায় আপোষ না করেই।

ফেসবুকের লাভ

ফেসবুক সরাসরি মেসেঞ্জার কিডস থেকে কোন অর্থ আয় করবে না বলে জানিয়েছে। এছাড়াও “চিলড্রেন অনলাইন প্রাইভেসি অ্যাক্ট” (COPPA) অনুযায়ী তারা শিশুদের একাউন্ট থেকে কোন ডাটা সংগ্রহ করবে না। তবে যখন শিশুরা ১৩ বছরে পা দেবে, তারা স্বয়ংক্রিয় উপায়ে “বড়দের একাউন্ট শ্রেণী”তে চলে যাবে। আর তখন গতানুগতিক একাউন্টে ফেসবুক যা করে, তাই করবে। বিস্তারিত আরও অনেক কিছু জানাতে ফেসবুক একটি ডেডিকেটেড পোর্টাল তৈরী করেছে, মেসেঞ্জারকিডস ডট কম ঠিকানায়।

প্রিয় পাঠক আমাদের শিশু পালন বিষয়ক নিবন্ধটি পড়ুন, আপনার শিশুর প্রতি যত্নবান হউন।

আপনার শিশুকে রোবট সম্পর্কে জানাতে হিউম্যানয়েড রোবট সোফিয়া সম্পর্কে পড়তে এখানে ক্লিক করুন

 

Click to comment

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

To Top